Home / মিডিয়া নিউজ / সিনেমা কেন ছাড়বো? প্রশ্নই আসে না : মাহিয়া মাহি

সিনেমা কেন ছাড়বো? প্রশ্নই আসে না : মাহিয়া মাহি

‘আমি তো কোথাও বলিনি সিনেমা বা শোবিজ ছেড়ে দেয়ার কথা। সিনেমা কেন ছাড়বো? প্রশ্নই আসে

না। সিনেমায় অভিনয় করার জন্যই সবাই আমাকে চেনে ও জানে। আমি নিয়মিতই অভিনয় করবো।

তবে আমার পরিবার আপত্তি করবে বা বিব্রত হবে এমন কোনো কাজ করবো না। একটু চুজি হতে চেষ্টা করবো।’

সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) দেশের একটি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কথাগুলো বলছিলেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি। জানা গেছে, ওমরাহ করে দেশে ফিরেছেন অভিনেত্রী মাহি। এসেই ‘কাগজের বউ’ সিনেমা করার কথা ছিলো। কিন্তু সেটি থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি। সবাই ভাবছিলেন, মাহি হয়তো আর সিনেমায় ফিরবেন না। কিন্তু সব গুঞ্জনে পানি ঢেলে দিয়ে সোমবার বিএফডিসিতে ‘বুবুজান’ চলচ্চিত্রের শুটিং করলেন অভিনেত্রী। সঙ্গে দেখা গেলো স্বামী রাকিব ও তার কয়েকজন সঙ্গীকে।

এক প্রশ্নের জবাবে মাহি বলেন, ওমরাহতে যাওয়ার দুই দিন আগেও শুটিং করেছি। যেদিন ওমরাহ হজে যাবো তার আগের রাত ২টা পর্যন্ত একটা সিনেমার ডাবিং করেছি। কোনো পরিচালককে তো সমস্যায় ফেলে দিয়ে যাইনি। মাঝে ১৫ দিনের মতো একটা গ্যাপ ছিলো। সেই ফাঁকে গিয়েছিলাম। এটা আমার ব্যক্তিগত প্রশান্তির জন্য যাওয়া।

তিনি বলেন, সবাই তো ভাবছে আমি সিনেমা ছেড়ে দিয়েছি। তাহলে কেন কাজ করছি। এটা আসলে ঠিক না। ইচ্ছে হলো আর একটা গুঞ্জন ছড়িয়ে দিলাম। সিনেমা আমার প্রফেশন, এটা আমার রিজিকের জায়গা। ওমরাহ তো ইবাদতের জায়গা। ইবাদতের জায়গায় ইবাদত আর কাজের জায়গায় কাজ। যখন সময় কিংবা পরিস্থিতি এমন হবে যে, আমি আর কাজ করবো না তখন আমার ডিরেক্টর, প্রডিউসারদের জানাবো। আপনারাও জানতে পারবেন। কারণ আমাকে ঘিরে অনেকের অনেক প্ল্যান থাকে। অনেক সিনেমার অর্ধেক কাজ করা আছে, হুট করেই তাদের সমস্যায় ফেলে তো আমি চলে যেতে পারি না।

‘কাগজের বউ’ সিনেমাটি ছাড়ার প্রসঙ্গে ঢালিউড অভিনেত্রী বলেন, ‘কাগজের বউ’ সিনেমার শুটিংয়ের আগে আমার শরীর খুব খারাপ ছিলো। শিডিউল ও অন্যান্য আর্টিস্টদের ডেট নেওয়া ছিলো। ফলে ওটা ক্যান্সেল করার কোনো ওয়ে ছিলো না। বাধ্য হয়ে আমি নিজে সরে এসেছি সিনেমাটি থেকে। আমি শারীরিকভাবে ওই কয়টা দিন অসুস্থও ছিলাম। আমার জন্য একটা টিমকে তো ভোগাতে পারি না। সেটা করলে তখন নেগেটিভ খবর ছড়াতো।

সাম্প্রতিক অডিও ফাঁস নিয়ে তিনি বলেন, বিষয়টা নিয়ে কোনো কথা বলবো না। অনেক কথা আমিও শুনেছি। যে যেমন বুঝে সে তেমন বলবে। কিছু করার নেই। আমার তো পরিবার আছে। কি রিয়্যাক্ট করতাম তখন! একটা মাতাল মানুষ, তার সঙ্গে কথা বাড়ানো তো বোকামো। এই রকম ফোন তো একদিন আসেনি, আরো অনেক ফোন আসতো। আমার কাছের মানুষদের সঙ্গে শেয়ার করতাম। তাদের একটা ভয় কাজ করতো। চুপ থাকতে বলতেন। এভাবেই পাশ কাটিয়ে গিয়েছি। দেখেন আমি তখন ফেসবুকে লাইভে আসতে পরতাম। হইচই হতো। কিন্তু আমার ইমেজ, পরিবারের ইমেজ ও নিরাপত্তার বিষয়টিও তো দেখতে হয়। যে খারাপ সে তার শাস্তি পেয়েছে।

Check Also

ভালো নেই পূর্ণিমা

ঢাকাই সিনেমার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী পূর্ণিমা ভালো নেই। হঠাৎ করে কয়েকদিন ধরে ঠাণ্ডাজ্বর ও গলা ব্যথায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Recent Comments

No comments to show.