Home / মিডিয়া নিউজ / আব্বু বেঁচে থাকলে খুশিতে কেঁদে দিতেন : তিশা

আব্বু বেঁচে থাকলে খুশিতে কেঁদে দিতেন : তিশা

আব্বুকে খুব মনে পড়ছে এই কয় দিন। আব্বুর স্বপ্ন ছিলো তার মেয়ে অনেক বড় শিল্পী হবে, সবাই

সুনাম করবে। উনি বলতেন, আমি সবাইকে বলবো “আমার নাম তিশার বাবা”! ছোট বেলা থেকেই

সারাক্ষণ আমার কানের কাছে এই কথাগুলো বলতে থাকতো আব্বু। শুনতে শুনতে এক সময় বিশ্বাস করতে শুরু করলাম “আমি পারবো”!

আবেগঘন কথাগুলো বলছেন অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে নিজের ফ্যানপেইজে এসব কথা বলেছেন তিশা।

প্রয়াত বাবা বেঁচে থাকলে খুশি হতেন উল্লেখ করে তিশা লিখেছেন, আজকে আমি বাংলাদেশের মানুষের প্রাণঢালা ভালোবাসা পেয়েছি এবং পাই। আমার আব্বু এই পর্যন্ত দেখলেই খুশিতে কেঁদে দিতেন। সেখানে এখন তার মেয়ের কাজের প্রশংসা করে এক সপ্তাহের মধ্যে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ দুইটা পত্রিকা (দ্য হলিউড রিপোর্টার ও স্ক্রিন ডেইলি) দুইটা অসাধারণ রিভিউ লিখেছে। এর আগেও ভ্যারাইটি পত্রিকায় আমার কাজের প্রশংসা করে লিখেছিলো। বাংলাদেশের একজন অভিনয় শিল্পীর জন্য যেটা বিরল, অভাবনীয়। এতো বড় আন্তর্জাতিক প্লাটফর্ম থেকে আমাদের শিল্পীদের কাজ নিয়ে প্রশংসা বের হবে এটা তো এখনও ভাবা যায় না।

তিশা লিখেছেন, আমি খুব কল্পনা করার চেষ্টা করছি এই দুইটা রিভিউ পড়লে আব্বু ঘরে ঢুকে কিভাবে তার ভালো লাগাটা বোঝাতেন ! আব্বু কি কেঁদে দিতেন, মিটিমিটি হাসতেন? আমি জানিনা। আমি শুধু জানি আব্বু সবকিছু দেখছে। এমনকি প্রতিদিন নামাজের পর আমি যে আব্বুর জন্য দোয়া করি সেটাও উনি শুনতে পান। এবং ঐ জগতে তার বন্ধু বান্ধবদের বলেন, “দেখেন আমার মেয়ে আমার জন্য দোয়া করছে। এমনি এমনি কি আর বলি আমার নাম তিশার বাবা!

তিশার ফেসবুক স্ট্যাটাস পড়ে ভক্তরাও আবেগ আক্রান্ত হয়ে পড়েন। ভক্তরাও তিশার স্ট্যাটাসের জবাব দেন।

Check Also

ভালো নেই পূর্ণিমা

ঢাকাই সিনেমার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী পূর্ণিমা ভালো নেই। হঠাৎ করে কয়েকদিন ধরে ঠাণ্ডাজ্বর ও গলা ব্যথায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Recent Comments

No comments to show.