Home / মিডিয়া নিউজ / এই মানুষগুলোই আমাকে বিয়ের আগেই প্রেগনেন্ট বানিয়ে দিয়েছিল : নাফিজা

এই মানুষগুলোই আমাকে বিয়ের আগেই প্রেগনেন্ট বানিয়ে দিয়েছিল : নাফিজা

লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার নাফিজা জাহান দাম্পত্য জীবনের টানাপোড়েনের কারণে স্বামী দীপের

সঙ্গে বিচ্ছেদ হতে যাচ্ছে বলে শোবিজপাড়ায় গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। সম্প্রতি এ নিয়ে বিভিন্ন জায়গায়

নাফিজার বিবাহিত জীবন নিয়ে নানা ’রঙের’ কথা ছড়াতে থাকে। আসলেই কী ঘটেছে নাফিজার

দাম্পত্য জীবনে? বিষয়টি খোলাসা করতে যোগাযোগ করা হয়। ৩০ জানুয়ারি, বুধবার দুপুর ১টার দিকে কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী নাফিজা জাহান। তিনি বলেন, ’কিছু মানুষ আছে যাদের কাজই হচ্ছে, এ ধরনের গুঞ্জন রটানো। যার যা ইচ্ছা করুক, এতে আমার কিছু যায় আসে না। কারণ যারা এসব করছে তারা তাদের ব্যক্তিজীবনে সুখী না। আমার ধারণা তাদের কোনো কাজ নাই। তাই কী করবে? টাইম পাস তো করতে হবে।’

লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতা দিয়ে রূপালি জগতে পদার্পণ হয় নাফিজার। এরপর অভিনয় করে পেয়েছেন দর্শকপ্রিয়তা। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ’৪২০’ নাটকে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়ান নাফিজা। ২০১৫ সালে সংগীতশিল্পী এস আই টুটুল ও অভিনেত্রী তানিয়া আহমেদের ভাগ্নে দীপকে বিয়ে করে দেশ ছাড়েন নাফিজা। অভিনয় জগতে তার অবস্থান যখন আরও পোক্ত হচ্ছিল, তখনই উড়াল দেন যুক্তরাষ্ট্রে। থিতু হন স্বামী-সংসার নিয়ে। দাম্পত্য জীবনের টানাপোড়েন নিয়ে কে কী বলল—এসব নিয়ে কোনো ধরনের মাথাব্যাথা নেই বলে জানান নাফিজা।

তিনি বলেন, ’আমি তো একটা মানুষ, আমার সংসারজীবন আছে। আমার পরিবারের সব কাজ আমাকেই করতে হয়। তাই এসব ভাবার সময় কই আমার? আর এই মানুষগুলোই তো আমাকে বিয়ের আগেই প্রেগনেন্ট বানিয়ে দিয়েছিল।’
’সত্যি কথা কী, এখন আমি আমাার ব্যক্তিজীবনের কোনো কিছু ফেসবুকে পোস্ট করি না। তাই হয়তো তাদের কাছে আমাকে ঘিরে আর নতুন কোনো গল্প নেই। সে জন্যই এসব করছে তারা।’ সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নাফিজা বলেন, ’আগে থেকেই চাইতাম, আমার সুন্দর একটা সংসার হবে। সুন্দর জীবনযাপন করব। ওখানে যাওয়ার পর আমি দেশকে মিস করতাম। সাথে আমার কাজ, বন্ধুবান্ধবসহ সবকিছুই। এটা আমার হাজব্যান্ড বুঝতে পারত।’

’ও আমাকে ওই জায়গাটা থেকে এমনভাবে বের করে নিয়ে আসছে, একটা সময় অনুভব করলাম আমি ঠিক সময়েই সঠিক সিদ্বান্তটা নিয়েছিলাম। ওর সাপোর্ট পাওয়ার কারণে বিষয়গুলো সহজভাবে নিতে পেরেছি।’ নাফিজা আরও বলেন, ’আমি মানুষ হিসেবে ফেক না। ভেতর কিংবা বাহির-দুই দিকেই একই রকম। তাই আমার কাছে ফেক পিপল ভালো লাগে না। মানুষ বলে না, বয়সের সাথে সাথে ম্যাচিউর হয়। আমার কাছে যেটা ভালো লাগে না, চোখ বন্ধ করে ইগনোর করে ফেলি। আমাদের জীবনটা অনেক ছোট। আমি ভালো থাকতে চাই। এটাই আমার জীবনের মেইন গোল।’

’আমি স্ট্রেট কথা বলার কারণে কেউ কেউ আমায় পছন্দ করে। আবার কেউ কেউ করেও না। আমি যদি হ্যাপি থাকি, দেন কেউ যদি এসে আমার সঙ্গে মিশে তখন বুঝতে পারবে, কোন সঠিক আর কোনটা ভুল।’ -প্রিয়.কম

Check Also

খোঁজ পাওয়া গেল সালমান শাহের আরেক নায়িকা সন্ধ্যার

ঢালিউডে তিনি যাত্রা করেছিলেন ‘প্রিয় তুমি’ সিনেমা দিয়ে। সেটা ১৯৯৫ সালের কথা। কলেজে পড়ার সময় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Recent Comments

No comments to show.