Home / মিডিয়া নিউজ / জয় বলছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়,থামিয়ে দিলেন হাসান ইমাম বললেন, এটা তিরস্কার

জয় বলছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়,থামিয়ে দিলেন হাসান ইমাম বললেন, এটা তিরস্কার

হাসান ইমাম বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। বহু গুণে গুণান্বিত এই ব্যক্তিটি বাংলাদেশি ব্যাপক

আলোচিত।নাট্যকার চিত্রনাট্যকার অভিনেতা আবৃত্তিকার হিসেবে বাংলাদেশে ব্যাপক সমাদৃত একটি

নাম হাসান ইমাম। এছাড়া আরেকটি পরিচয় রয়েছে তিনি একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বটে। একসময়

বাংলাদেশি বিনোদন জগতে তাঁর বিচরণ ছিল ব্যাপক। ছোটপর্দার জনপ্রিয় মুখ ছিলেন তিনি। টিভি

খুললেই দেখা যেত তাকে। তবে বর্তমানে বয়সের ভারে তেমন আর বিনোদন জগতে বিচরণ হয়না তার। কিন্তু রাজনীতির মাঠে এখনো সক্রিয় আছেন তিনি। সম্প্রতি বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ৩০০ সেকেন্ডে উপস্থিত হয়েছিলেন হাসান ইমাম। সে অনুষ্ঠানের উপস্থাপক হোসেন বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় একজন অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়।
আর এখানে তিনি কথা বলেছেন তার সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক জীবন নিয়ে।

সঞ্চালক শাহরিয়ার নাজিম জয়ের ’সর্বজন শ্রদ্ধেয়’ সম্বোধনে এই অভিনেতা কথা থামিয়ে বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করে ’সর্বজন শ্রদ্ধেয়’ কথাটা তিরস্কার, পুরস্কার নয়। কারণ সর্বজন শ্রদ্ধেয় সেই মানুষটিই হয়, যিনি সবদিকে তাল মিলিয়ে চলেন।

শিল্পী হয়েও কেন রাজনীতিতে দেখা যায়? এমন প্রশ্নে হাসান ইমাম বলেন, রাজনীতি ছাড়া কিছু নেই। যে বলে যে আমি রাজনীতি করি না, এটাও কিন্তু একটা বড় রাজনীতি। তবে আমি রাজনীতি করে কিছু পাবো, এই আশায় এটা করিনি। আমার জীবনের প্রয়োজনে রাজনীতি করেছি। মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমার ছোট কালের অভ্যেস। সেজন্য আমি ছোট থেকেই রাজনীতি সচেতন।

ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধেও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে থেকে কীভাবে প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন, কথা কথায় হাসান ইমাম জানালেন সেসব কথাও। বললেন, যে স্বপ্ন নিয়ে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি করেছিলেন সেটার প্রাসঙ্গিকতা এখনো চলমান। উদাহরণ হিসেবে সম্প্রতি হোলি আর্টিজান হামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের আইএস সংশ্লিষ্টতার কথা বলেন তিনি।

হাসানের ইমামের জন্ম বর্ধমানে। ছেলেবেলা কেটেছে পশ্চিমবঙ্গেই। ১৯৫৭ সালে বাংলাদেশে আসেন তিনি। সেবছরই প্রথমে দর্শনার সুগার মিলে এবং পরে ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তানে কাজে যোগ দেন। এরপর শুরু করেন মঞ্চে অভিনয়। প্রতিবাদী শিল্পী সমাজের নেতৃত্ব দেন তিনি। ১৯৬১ সালে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে রবীন্দ্র জন্ম শতবর্ষের আয়োজন করেন। রক্তকরবী, রাজা ও রানী, তাসের দেশ নাটকে অভিনয় করেন।

উল্লেখ্য, শুধু অভিনেতা কিংবা রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ইনান হাসান ইমাম। বাংলাদেশ বেতারের একসময়ের শব্দসৈনিক ও পরিচালক ছিলেন তিনি। বাংলাদেশের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আহ্বায়ক ও তিনি। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদান রয়েছে অনেক। অভিনেতা হিসেবে তিনি পেয়েছেন অনেক পুরস্কার। শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় চলচিত্র পুরষ্কারও।

Check Also

খোঁজ পাওয়া গেল সালমান শাহের আরেক নায়িকা সন্ধ্যার

ঢালিউডে তিনি যাত্রা করেছিলেন ‘প্রিয় তুমি’ সিনেমা দিয়ে। সেটা ১৯৯৫ সালের কথা। কলেজে পড়ার সময় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Recent Comments

No comments to show.